বান্দরবানে বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরুর বিরুদ্ধে খ্রিস্টান মিশনের জমি জবরদখলের অভিযোগ

বান্দরবানে বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরু উ পঞ্ঞা জোত মহাথেরোর বিরুদ্ধে জমি জবরদখলের অভিযোগে বুধবার সকালে মানববন্ধন করেন ক্যাথলিক মিশনসহ বিভিন্ন সংগঠনের মানুষ।

বান্দরবানের বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরু উ পঞ্ঞা জোত মহাথেরোর (উ চ হ্লা ভান্তে) বিরুদ্ধে খ্রিস্টান ক্যাথলিক মিশনসহ ২০ জনের মালিকানাধীন প্রায় একশ’ একর জমি জবরদখলের অভিযোগ উঠেছে। এর প্রতিবাদে বুধবার সকালে বান্দরবান প্রেস ক্লাব চত্বরে একটি মানবন্ধন করেন জমিগুলোর সাথে সংশ্লিষ্ট কয়েকশ’ মানুষ।

মানববন্ধনে নেতৃত্ব দানকারী পৌর কাউন্সিলর ও জেলা বড়ৃয়া কল্যাণ সমিতির সভাপতি দিলীপ বড়ুয়া বলেন, ‘উ চ হ্লা ভান্তে একজন সম্মানিত ধর্মগুরু। কিন্তু তিনি মানুষের জমি জবরদখল করে অত্যাচারীর ভূমিকায় অবতীর্ন হয়েছেন।’

সেখানে অংশ নেয়া মৌজা হেডম্যান ও বোমাং রাজপুত্র নুমংপ্রু চৌধুরী বলেন, ‘আমার পিতা প্রয়াত বোমাং রাজা মংশৈ প্রু চৌধুরীর মালিকানাধীন এসব জমিতে আমাদের চাষাবাদ ছিলো। উ চ হ্লা ভান্তে রাতারাতি এসব জমি দখল করে নিয়েছেন। এমনকি তিনি ১৪৪ ধারার নিষেধাজ্ঞাও মানেননি।’

চট্টগ্রাম ক্যাথলিক ধর্মপ্রদেশের ফাদার জেরোম ডি’রোজারিও বলেন, ‘উ চ হ্লা ভান্তের পিতার কাছ থেকে ক্যাথলিক সাড়ে পাঁচ একর জমি কিনেছিলো। সেই জমি থেকে উৎপাদিত ধানে মিশনের অনাথ শিশুদের খাওয়া চলতো। জবরদখল করে নেবার পর শিশুদের খাদ্যসংস্থান বন্ধ হয়ে গেছে।’

প্রসঙ্গত, ২০০৬ সাল থেকে এই বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরুর বিরুদ্ধে জমি জবরদখলের অভিযোগ করে আসছে পাহাড়ি-বাঙালি বিভিন্ন সম্প্রদায়ের বেশ কিছু ব্যক্তি ও সংগঠন। বিষয়টি নিয়ে আদালতে মামলাও চলমান আছে।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here